সরকারি ডাক্তারখানা এখন শিক্ষকদের আবাসস্থল

সিলেট ব্যুরো প্রধানঃ মাসুদ লস্কর
  • Update Time : সোমবার, ৮ আগস্ট, ২০২২
  • ৯৫ Time View

হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলার নোয়াপাড়া ইউনিয়ন স্বাস্থ্য কেন্দ্রের অধীনস্থ সরকারি ডাক্তার খানা কে সৈয়দ সৈয়দ উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজের শিক্ষকদের আবাসিক ভবন হিসাবে ব্যবহার করা হচ্ছে।
সরজমিনে ঘুরে দেখা যায়, টিনসেড নির্মিত প্রাচীন ঘরটিতে বড় করে সাইনবোর্ডে লেখা রয়েছে “সরকারি ডাক্তারখানা “।আবার একই ঘরে দেখা যায় আরেকটি সাইনবোর্ড। তাতে লেখা আছে” টিচার্স কোয়ার্টার ”
এক ঘরে দুইটি সাইনবোর্ড দেখে যে কারো মনে প্রশ্ন জাগবে আসলে ব্যাপার কি? আর এই প্রশ্নের জবাব খুজতে গিয়ে কেচো খুরতে সাপ বেরিয়ে এল।
নোয়াপাড়া আই,বি,সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবু তাহের বলেন আগে এ ঘরেই চিকিৎসা সেবা দেওয়া হত। নতুন ভবন হওয়াতে এখন এই ঘরটিতে শিক্ষকরা থাকছেন। নোয়াপাড়া গ্রামের বিল্লাল চকদার ও আওয়ামী লীগ এর ইউনিয়ন কমিটির সভাপতি জিতু মিয়া বলেন, এ ঘরটা আসলেই চিকিৎসা সেবা কেন্দ্র হিসাবে ব্যবহার হত। কিন্তু এখন দেখছি শিক্ষক রা থাকছেন।
জানা যায়, নোয়াপাড়া ইউনিয়নে সৈয়দ সৈয়দউদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয়, আই,বি,সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও নোয়াপাড়া ইউনিয়ন সরকারি স্বাস্থ্যকেন্দ্র পাশাপাশি অবস্হিত হওয়ায় এবং সরকার কর্তৃক স্বাস্থ্য কেন্দ্রের নতুন ভবন নির্মাণ করায় সরকারি ডাক্তার খানা ঘরটি আপাতত অকেজো হয়ে পরে। এ সুবাদে সৈয়দ সৈয়দ উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটি ঘরটি শিক্ষকদের আবাসস্থল হিসাবে ব্যবহার করছেন বলে এলাকাবাসী জানায়।শিক্ষকদের আবাসস্থল সরকারি ঘরে কেন জানার জন্য ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি সৈয়দ হুমায়ুন এর মুঠোফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করে ও ওনার বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয় নি। এ ব্যাপারে জানতে চাইলে হবিগঞ্জের সিভিল সার্জন বলেন, এটা স্বাস্থ্য বিভাগের আওতাধীন নয়,সরকারি ডাক্তার খানা কিন্তু স্বাস্হ্য বিভাগের আওতার বাইরে যদি সরকারি ডাক্তার খানা টি স্বাস্থ্য বিভাগের আওতাধীন না হয়ে থাকে তাহলে সাইনবোর্ডে এ কথাটি লিখার মানে কি? আশাকরি কর্তৃপক্ষ তা খতিয়ে দেখবে।

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category